Home » বাংলাদেশ » নগর-মহানগর » ‘আপনারা কি আদালতে আসেন কেবল জামিন নেওয়ার জন্য?

‘আপনারা কি আদালতে আসেন কেবল জামিন নেওয়ার জন্য?

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার শুনানিকালে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের উদ্দেশে আদালত বলেছেন, ‘আপনারা কি আদালতে আসেন কেবল জামিন নেওয়ার জন্য? আপনারা বিচারকে বিলম্বিত করছেন।’ খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানি না করে তাঁর আইনজীবীরা সময় চাইলে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫-এর বিচারক আখতারুজ্জামান এসব কথা বলেন।

গতকাল সোমবার এই মামলার দুই আসামি আদালতে অনাস্থা দেন। এর ওপর আজ আদেশ দেওয়ার দিন ঠিক করেছিলেন আদালত। আজ আদালত বলেন, অনাস্থার বিষয়ে আগামীকাল বুধবার আদেশ দেবেন। আজ শুনানির শুরুতে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন আদালতকে বলেন, আসামিপক্ষের আইনজীবীরা বিচারকাজে আদালতকে সহযোগিতা করছেন না। বরং ভেতরের-বাইরের ষড়যন্ত্র এক হয়ে গেছে। কেমন যেন গুমোট অবস্থা তৈরি হয়েছে।

আদালতের প্রতি অনাস্থা দেওয়ার প্রসঙ্গে মোশাররফ হোসেন আদালতকে বলেন, কোনো প্রেক্ষাপট তৈরি হয়নি যে আসামিপক্ষ অনাস্থা দেবে। বাস্তবে তাঁরা ষড়যন্ত্র করছেন। আদালত মামলার কার্যক্রম বন্ধ করতে বাধ্য নন। তাঁদের আচরণ স্ববিরোধী। উচ্চ আদালত থেকে কোনো আদেশ আসেনি। আদালত মামলার কার্যক্রম বন্ধ করতে বাধ্য নন।

আইনে যুক্তিতর্কের বিধান নেই জানিয়ে মোশাররফ হোসেন আদালতকে বলেন, ‘দুদকের পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ হয়েছে। আসামিপক্ষের আংশিক যুক্তিতর্ক হয়ে গেছে। এখন তাঁরা যদি যুক্তিতর্ক শুনানি না করেন, তাহলে আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। আসামিদের যুক্তিতর্ক এর সুযোগ দিয়ে মনে হচ্ছে, আমরা ভুল করেছি। এখন যুক্তিতর্ক না করলে মামলার রায় ঘোষণার দিন ঠিক করবেন আদালত।’

খালেদা জিয়ার আদালতে না আসা প্রসঙ্গে মোশাররফ হোসেন বলেন, খালেদা জিয়া মামলা চালাতে দেবেন না। এভাবে চললে বিচারব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে যাবে। কারাগারে থাকলে কোনো আসামি বলতে পারেন না, তিনি আদালতে আসতে অনিচ্ছুক। খালেদা জিয়াকে তো আর জোর করে আনা সম্ভব না। তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী। বয়স্ক মহিলা। তাঁর সুবিধার কথা ভেবে এখানে আদালতে বসানো হয়েছে। তাঁর সম্মানের কথা ভেবে জেল কর্তৃপক্ষ তাঁকে আনছে না। এ সুযোগ তারা নিচ্ছে।

অন্যদিকে, খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার আদালতে বলেন, খালেদা জিয়া নিজে আদালতে এসে বলে গেছেন, তিনি গুরুতর অসুস্থ। খালেদা জিয়া একা চলতে পারেন না। এক জায়গায় বেশিক্ষণ বসে থাকতে পারেন না। বাথরুমে পড়ে গেছেন। তাঁর চিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড হয়েছে। কারা মহাপরিদর্শক জানিয়েছেন, দু–এক দিনের মধ্যে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যবস্থা হবে।

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার চলার আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাবেন জানিয়ে মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, খালেদা জিয়া সুস্থ হলে তিনি আদালতে আসবেন। সে পর্যন্ত শুনানি মুলতবি চান তিনি।

আদালতের প্রতি অনাস্থা দেওয়া দুই আসামি হলেন বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান। জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠানো হয় জিয়াউল ইসলামকে। আজ তাঁকে আদালতে হাজির করা হয়। তবে আদালতে তাঁর আইনজীবী আমিনুল ইসলাম হাজির ছিলেন না। মনিরুলের আইনজীবী আখতারুজ্জামান আদালতে হাজির ছিলেন।

About Bangla Tidings

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

করোনা ভাইরাস: আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষে আমেরিকায়

আমেরিকায় ক্রমশ ভয়াবহ আকার নিচ্ছে মারণরোগ করোনা ভাইরাস। এবার আক্রান্তের সংখ্যায় গোটা বিশ্বকে ছাপিয়ে গেল ...

বিএনপি নেতা সানাউল্লাহ মিয়া প্রয়াত

ঢাকা ২৭ মার্চ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ও বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া ...

করোনা ভাইরাসের ছবি প্রকাশ করল ভারত

  বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস আতঙ্ক। করোনা ভাইরাস মোকাবিলা করতে ব্যস্ত হলেও সদুত্তর পাননি বিশেষজ্ঞরা। বিজ্ঞানীদের ...

দরিদ্র নাগরিকদের স্ব স্ব ওয়ার্ড কাউন্সিলর-এর সাথে যোগাযোগ করতে বললেন চৌগাছার মেয়র

চৌগাছা, ২৭ মার্চ এলাকার হত দরিদ্র নাগরিকদের জন্য একটি বিশেষ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে চৌগাছা পৌর মেয়র ...